ব্রেকিং নিউজঃ

প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পূরণে লজিক প্রকল্প পেয়ে খুশি রৌমারীর ৪টি ইউনিয়নের জনগন

আপডেটঃ ১০:০৮ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১৭, ২০২৩

 

 

রৌমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন পূরণে গ্রামকে শহরে পরিণত করার অংশ বিশেষ লোকাল গর্ভনমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেইঞ্জ (লজিক) প্রকল্পের সোলার প্যানেলের মাধ্যমে কৃষি জমিতে সেচ পাম্প, পানি শোধানাগার, টয়লেট নির্মান ও স্কুলের ২কক্ষ বিষ্টিট পাকা ঘর নির্মানে। লজিক প্রকল্পের কাজ পেয়ে খুশি রৌমারীর ৪টি ইউনিয়নের সাধারণ জনগন।
এ উপজেলায় ২০২১/২২অর্থ বছরে দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নে ৪টি প্রকল্প, বন্দবেড় ইউনিয়নে ৫টি, শৌলমারী ইউনিয়নে ৩টি ও রৌমারী সদর ইউনিয়নে ৫টিসহ মোট ১৭টি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। যার ব্যয় ধরা হয়েছে ১ কোটি ৫৩ লক্ষ ১৮ হাজার ৭০৯ টাকা। এসব প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, মধ্যম শ্রেণীর কৃষক, পথচারীসহ এলাকাবাসি সুবিধাভোগ করতে পারবে। সোলার প্যানেলের মাধ্যমে সেচপাম্প চালু হলে কৃষকরা জ্বালানী তেল কেনা থেকে রেহাই পাবে এবং বিনামুল্যে ইরি ধানের আবাদ করতে পারবে। অপর দিকে পানি শোধানাগার নির্মাণ কাজ শেষ হলে বন্যাকালে স্থানীয়রা বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে পারবে এবং পানিবাহিত নানা রোগ থেকে রেহাই পাবে তারা। স্থানীয়রা এসব কাজ দ্রæত সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনের কাছে জোরদাবী জানান।
ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম বলেন, খুব সুন্দর ভাবে লজিকের কাজ হচ্ছে। এই কাজ শেষ হলে এলাকাবাসিরা সব সময়ে ব্যবহার করতে পারবে। এই উন্নয়নের কাজের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
খনজনমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এই স্কুলে পানিশোধানাগার নির্মাণ করায় বিদ্যালয়ে প্রায় ৪শত শিক্ষার্থী বিশুদ্ধ পানি পান করতে পারবে। তাছাড়া নানা রোগ থেকেও রক্ষা পাবে সকলেই।
বন্দবেড় ইউপি চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুল কাদের সরকার বলেন, আমার ইউনিয়নে ২০২১/২২অর্থ বছরে লজিক প্রকল্পের কাজ ঠিকাদারের মাধ্যমে করা হচ্ছে। এই নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের দিকে। এই কাজের মধ্যে কোন অনিয়ম করতে পারেনি ঠিকাদার। নির্মাণ কাজের সকল নির্মাণসামগ্রী ভালো দেওয়া হয়েছে।
শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, বলেন, লজিক প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হলে আমার ইউনিয়নের শিক্ষার্থী, কৃষকসহ সকল জনগণ এর সুবিধা ভোগ করবে। এই কাজের জন্য লজিক প্রকল্পের উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাই এবং সামনের দিনে আরো বেশি করে প্রকল্প দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।
দাঁতভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান এসএম রেজাউল করিম বলেন, লজিক প্রকল্পের অধিনে দাঁতভাঙ্গা বালিকা বিদ্যালয়ে পানি শোধানাগার ও টয়লেট এর নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ। এই কাজ অনেকটা ভালো হয়েছে। এর কারনে এলাকাবাসি বিশুদ্ধ পানির সুবিধা পাবে। এই প্রকল্পের অর্থ বাড়ানোর জন্য লজিকের কর্মকর্তাদের কাছে অনুরোধ করি এবং ধন্যবাদ জানাই।