ব্রেকিং নিউজঃ

দুর্গাপুরে বালাইশ নদীর মাটি বাড়িতে নেওয়ার অভিযোগ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

 

নেত্রকোণা প্রতিনিধি : জেলার দুর্গাপুর উপজেলার কাকরগড়া ইউনিয়নের বড়বাট্টা বাজারের পুর্বপাশে নদীর তীরে রাখা নদী খননের মাটি কেটে বাড়িতে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এসব মাটি ভেকু দিয়ে কেটে ডাম্প ট্রাকে করে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। রাতদিন এসব মাটি কেটে নিয়ে যাওয়া হলেও ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। স্থানীয়রা জানান এদের উপযুক্ত বিচার না করা হলে আশপাশের লোকজন তীরের মাটি বাড়িতে নিয়ে যাবে। বালাইশ নদীর তীরের মাটি কেটে নেওয়ার কারণে নদীর পাশের ফসলি জমিতে ভাঙ্গণ ছড়িয়ে পড়তে পারে ও এই এলাকায় জমি চাষে অনুপযোগী হয়ে যাবে। এলাকাবাসী বলছে ‘সরকারি নদীর মাটি এভাবে কেটে বাড়িতে নিয়ে গেলেও প্রশাসনের নজরদারি দেখি না।’ মাটি কাটার কারণে নদীর তীর ভেঙ্গে ফসলি জমিতে আবাদ করা বন্ধ হয়ে যাবে। ২০২১-২২ অর্থ বছরে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) নেত্রকোণা দুর্গাপুর বালাইশ নদী খননের উদ্যোগ নেয়। নদী খননের মাটি তীর করে রাখা হয়। গত কয়েক দিন ধরে মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে আসাদ মাস্টার, আতাহার মুন্সী,হাসান মুন্সী, ও তাদের ভাইগণ মিলে লোকজন দিয়ে ভেকুর (এক্সকাভেটর) সাহায্যে ওই মাটি কেটে ডাম্প ট্রাকে করে বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছে। ২টির মতো ডাম্প ট্রাকে করে মাটি বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় ই্উপি চেয়ারম্যান শিব্বির আহমেদ বাচ্ছু বলেন সরকারি ভাবে বালাইশ নদীতে মাটি কাটা হয়েছে। সেই মাটি আব্দুল মন্নানের ছেলেরা নিয়ে যাচ্ছে। অধিক ওজনের ডাম্প ট্রাক মাটিবাহী গাড়ি চলাচলে আশপাশের সড়ক ভেঙে যাচ্ছে। আগামী বর্ষায় এই অঞ্চলের মানুষের চলাচল খুবই ভোগান্তি সৃষ্টি হবে। তা ছাড়া ধুলোবালিতে অতিষ্ঠ গ্রামবাসী। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলেছি। এ ব্যপারে মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে আসাদ মাস্টার বলেন এটা আমার পৈত্রিক সম্পত্তি এখানের মাটি বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছি। দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুল ইসলাম প্রিন্স এর সঙ্গে মুঠোফোনে নদীর মাটি কেটে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন নাইব সাহেবকে বলে দিয়েছি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*