বাহুবলে হাসপাতাল থেকে যুবতি সুমির লাশ উদ্ধার

আপডেটঃ ৮:১৮ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২

বাহুবল (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা : হবিগঞ্জের বাহুবলে পুর্ববিরোধের জের ধরে সুমি আক্তার (১৮) নামে এক যুবতিকে গলায় ওড়না পেছিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। তবেঁ ঘটনাটি হত্যা না-কি আত্মহত্যা এনিয়ে এলাকায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় হাসপাতাল থেকে সুমির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে (২৩ সেপ্টেম্বর) শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে উপজেলার তগলী গ্রামে।

জানা যায়, উপজেলার তগলী গ্রামের মর্তুজ আলী ও একই গ্রামের আঃ সোবহান মিয়ার মাঝে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিবাদ ও মামলা মোকাদ্দমা চলছে। পুর্ববিরোধের জের ধরে আজ (২৩ সেপ্টেম্বর), শুক্রবার সকাল দিকে ১১টার দিকে বাড়ির পাশে মর্তুজ আলী ও আঃ সোবহানের লোকজনের মাঝে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে সমুজ মিয়া নামে এক ব্যক্তি আহত হয়। এর পরক্ষণেই কিশোরী সুমি আক্তার (১৮) কে তার নিজ বসত ঘরের ঘরের রোয়ার সাথে ওড়না পেছিয়ে থাকতে দেখে সুমির স্বজনেরা বাহুবল হাসপাতালে নিয়ে আসলে সংশ্লিষ্ট ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

এদিকে, পুর্ববিরোধের জের ধরে পরিকল্পিতভাবে সুমি আক্তারকে তার নিজ ঘরের রোয়ার সাথে ওড়না পেছিয়ে আঃ সোবহান ও তার লোকজন মিলে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবী করেছেন,সুমির পিতা মর্তুজ আলী ও তার চাচা মন্জুর আলী। তবেঁ এটি হত্যা না-কি আত্মহত্যা এ এলাকায় আলোচনা-সমালোচনা চলছে। অপরদিকে, এস আই জালাল উদ্দিন জানান, এ ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে প্রাথমিক ধারণা করা হয়েছে বলে জানান।