শ্রীপুরে নির্মাণাধীন বহুতল ভবনের ছাদ থেকে ইট পড়ে এক শিশুর মৃত্যু

আপডেটঃ ১০:৩০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : গাজীপুরের শ্রীপুরে বহুতল ভবনে উপর থেকে নির্মাণ সামগ্রী পড়ে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এতে ঘটনাস্থলেই শিশুর মৃত্যু হয়। বাড়ির ছয়তলা ভবন নির্মাণ কাজ চলছে।
শিশুটি বহুতল ভবনের নিচে খেলছিলো৷ স্থানীয়দের অভিযোগ কোন ধরনের নিরাপত্তা বেষ্টনী ছাড়া ভবন মালিক নির্মাণ কাজ করছিলো। গতকাল বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে উপজেলার মাওনা ইউনিয়ন মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামের স্থানীয় স্বপন খানের বহুতল ভবনের নিচে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত শিশু ফাতেমা খাতুন (০৮) ময়মনসিংহ জেলার সদর কোতোয়ালী থানার চরভবানীপুর গ্রামের মো. আমিনুল ইসলামের কন্যা। সে স্থানীয় একটি মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছিলো। ভবন নির্মাণের দায়িত্বে থাকা ঠিকাদার মো. হানিফ মিয়া বলেন, আমি ভবনের নির্মাণ কাজ করছি, কিন্তু আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম না।
ভবনের উপর মাঝে মধ্যেই থেকে ভাঙা ইটা সুরকি ফেলা হয়ে থাকে। তবে আজ ফেলার সময় নিচে শিশুরা খেলাধুলা করছিলো এটা তারা দেখেনি। নিরাপত্তা বেষ্টনী ছাড়া বহুতল ভবনের কাজ করেন কি করে? এজন্যই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে? সীমানাপ্রচীর ভেতর তো কাজ করছি তাই নিরাপত্তা বেষ্টনী দেয়নি। শিশুর বাবা আমিনুল ইসলাম বলেন, আমার মেয়ে আরও দু’জন শিশুকে নিয়ে বহুতল ভবনের নিচে খেলাধুলা করছিলো।
এসময় বহুতল ভবনের ছাদ থেকে বস্তা ভর্তি নির্মাণ সামগ্রী ফেলে দেয় নির্মাণ শ্রমিকরা। তাতে নির্মাণ সামগ্রী ভর্তি বস্তা আমার মেয়ের মাথায় পড়ে মাথা ফেটে চৌচির হয়ে যায়। প্রচুর রক্তক্ষরণ শুরু হলে আশপাশের লোকজন আমার মেয়েকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ক্লিনিকের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান শিশুটি হাসপাতালে নিয়ে আসার পূর্বেই তার মৃত্যু হয়। বহুতল ভবনের মালিক মো. রফিকুল ইসলাম স্বপন খান বলেন, ঘটনারা পরপরই আমি শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর শিশুটির মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসক।
আপনি তো ভবনে কাজে কোন ধরনের নিরাপত্তা বেষ্টনী করেন নাই? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা তো ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এবিষয়ে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।